টঙ্গীবাড়িতে করোনা আক্রান্ত গোপন রেখে দাফন, জন মনে আতঙ্ক,মান্দ্রা গ্রাম লকডাউন!

0
30
রোববার থেকে রাজধানীতে জোন ভিত্তিক লকডাউন

প্রকাশিত : রবিবার,  ১২ এপ্রিল ২০২০ ইং ।। ২৯ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

বিক্রমপুর খবর : টঙ্গীবাড়ি প্রতিনিধি : টঙ্গীবাড়ি উপজেলার মান্দ্রা গ্রাম রবিবার লকডাউন করে দেয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জে মারা যাওয়া আব্দুল হামিদ শেখকে (৭০) শুক্রবার টঙ্গীবাড়ি উপজেলার পাঁচগাঁওয়ের মান্দ্রা গ্রামে দাফন করা হয়।

এর আগে নারায়নগঞ্জে বসবাসরত ওই বৃদ্ধা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে বৃহস্পতিবার রাতে তাকে পরিবারের লোকজন নারায়নগঞ্জ ভিক্টেরিয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে সে মারা যায়।

পরে শুক্রবার সকালে পারিবারিকভাবে ১০-১২জন লোক তাকে জানাজা দিয়ে উপজেলার ঝিনাইসার কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে সে সময় দাবী করা হয় নিহত আব্দুল হামিদ সেখ দির্ঘদিন যাবৎ লিভার ও কিডনি রোগে ভোগতেছিলেন ঘটনার রাতে সে ষ্টোক করে মারা গেছেন। তার লাশ মারা যাওয়ার পরেই বৃহস্পতিবার রাতেই তার গ্রামের বাড়ি উপজেলার মান্দ্রা গ্রামে নিয়ে আসলে ওই এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পরে।

করোনা লক্ষণ গোপন রেখে মারা যাওযার কারণ ‘হার্ট অ্যাটাক’ বলা হয়। তারপরও নারায়ণগঞ্জে মারা যাওয়ার কারণে স্থানীয় প্রশাসন দাফনের আগে মৃত দেহের নমুনা সংগ্রহ করে শনিবার পরীক্ষার জন্য পাঠায়।

রবিবার সকালে সিভিল সার্জন ডা.আবুল কালাম আজাদ বলেন,আইইডিসিআরে নিশ্চিত করেছে ‘মৃত ব্যক্তি কোভিড ১৯ সংক্রমিত ছিলেন’। তাই দাফনের সাথে যারা ছিলেন তাদের চিহ্নিত করণ এবং হোম কোয়ারেন্টিনে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

টঙ্গীবাড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা.হাসিনা আক্তার সভ্যতার আলোকে বেলা সাড়ে ১১টায় জানান, এই দাফনের সাথে গ্রামটির অনেকেই অংশ নেন। প্রাথমিকভাবে ২০টি পরিবার বলা হলেও দেখা যাচ্ছে আরও বেশী লোকজন ছিলেন। সার্বিক বিবেচনায় পুরো গ্রামটিই লকডাউন করতে হচ্ছে । কিছু সময়ের মধ্যেই এব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
সিভিল সার্জন আরও জানান,শনিবার পর্যন্ত ৯৩ জনের নমুনা প্রেরণ করা হয়। এর আগে শনিবার পর্যন্ত পাওয়া ৭৪ জনের রিপোর্টে জেলার পাঁচটি উপজেলায় ১০ জনের করোনায় আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হয়। এই ১০ জন রোগী সবাই এখনও ভাল আছেন। ৬ জনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। একজন স্থানীয় উপজেলা হাসাপতালে আইসোলেশনে আছেন। টঙ্গীবাড়িতে বাকী ৩ জন বাড়িতেই আইসোলেশনে আছেন। আর রবিবার আরও ১৯ জনের রিপোর্ট পাওয়া গেলে এতে নারায়ণগঞ্জ মারা যাওয়া হামিদ শেখ ছাড়াও আর সবার রিপোর্ট ভাল এসেছে। তাই এর্পন্ত ৯৩ জনেরই রিপোর্ট পাওয়া গেলো। এতে ১১ জনের পজেটিভ এসেছে।

 

একটি উত্তর দিন

দয়া করে আপনার কমেন্টস লিখুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন