কিডনি দিয়ে জীবন বাঁচাতে বিয়ে করেও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না রোমানা !

0
170
রাজিবের শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী তার জানাজা নামাজ পড়ানো হয় ছোট বেলা থেকে বেড়ে উঠা মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার সুন্দিসার গ্রামের খেলার মাঠে।

প্রকাশিত: সোমবার,২০মে ২০১৯।৬ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। ১৪ রমজান ১৪৪০ হিজরি।

বিক্রমপুর খবর: কিডনি দিয়ে জীবন বাঁচাতে বিয়ে করেও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না রোমানা ! “ রাজিব-রোমানার” একজন মৃত্যুপথযাত্রীর জীবন বাঁচানোর লড়াই! প্রেম কাহিনী বিক্রমপুর সহ সারা দেশে ২ বৎসর আগে সারা পড়েছিল মানুষের মুখে মুখে ছিল “নিজের কিডনি দিয়ে বাঁচাতে চেয়েছিলেন আরেকজনের প্রাণ”। তবে শেষ রক্ষা আর হলো না। জীবন-যুদ্ধে পরাজিত হলেন আনোয়ার হোসেন রাজীব। হার না মানা যুদ্ধে হেরে গেলেন রোমানা তাসমিন।

আজ সোমবার (২০ মে) ভোর ৫টার দিকে রাজধানীর ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থান শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আনোয়ার হোসেন রাজীব (৩১) (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।  সপ্তাহে ২বার নিয়মিত ডায়ালাইসিস  সেই প্রথম থেকেই চলতেছিল গত ১৭ মে রাজীবের স্বাস্থ্য খারাপ হলে সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং রাজীবের শরীরে হেপাটাইসিস-সি ভাইরাস ও নিউমোনিয়া ধরা পড়ে ভর্তি  অবস্থায় চিকিৎসা চলতে থাকে।

গত রোববার (১৯ মে) রাতে অবস্থা আরও খারাপ হলে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। সেখানেই সোমবার ২০ মে ভোর ৫টার দিকে মারা যান রাজীব। সব বাঁধন ছিঁড়ে সোমবার রাজীব চলে গেছে না ফেরার দেশে। রোমানাকে রেখে চলে গেলেন রাজীব! এতে আবারও একা হয়ে গেলেন রাজীবকে কিডনি দিয়ে বাঁচাতে এগিয়ে আসা রোমানা।

রাজিবের শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী তার জানাজা নামাজ পড়ানো হয় ছোট বেলা থেকে বেড়ে উঠা মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার সুন্দিসার গ্রামের খেলার মাঠে। বাদ যোহর নামাজের পরে মাঠের উত্তর পশ্চিম প্রান্তে বড় এক গাছের নিচে সুশীতল ছায়ায় জানাযা নামাজ পড়ান মসজিদের ঈমাম। রাজিবের ইচ্ছাছিল তার খেলার সাথি গ্রামের মানুষের অংশগ্রহণ থাকে তাই হয়েছিল।

এর পর রাজিবের মরদেহ দাফনের জন্য নিয়ে যাওয়া হয় তার পৈত্রিক বাড়ি শরিয়তপুরে পদ্মা নদীর ওপারে। ট্রলারে উঠায়ে দিতে বা শেষ বিদায় জানাতে গ্রামের সকল মানুষ ভর দুপুরে এপারে পদ্মা নদী পাড়ে আসেন এবং অশ্রু সজল চোখে বিদায় জানান।

একটি উত্তর দিন

দয়া করে আপনার কমেন্টস লিখুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন