সুবর্ণা সেঁজুতি টুসি’র ৭টি আন্তর্জাতিক পুরস্কারপ্রাপ্ত “মীনালাপ”চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও আলোচনা অনুষ্ঠান

0
169

প্রকাশিত:মঙ্গলবার,২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

বিক্রমপুর খবর ডেস্ক: আগামী ২৭ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে-৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা মিলনায়তনে ছবিটির প্রদর্শনী ও আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

প্রদর্শনীতে আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট নির্মাতা শামীম আখতার, নুরুল আলম আতিক এবং সুবর্ণা সেঁজুতি টুসি। সভাপতিত্ব করবেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর মহাপরিচালক জনাব লিয়াকত আলী লাকী।

ছবিটির আগ্রহী দর্শক, বন্ধু,স্বজন, শুভানুধ্যায়ী— সবাইকে দেখার ও আলোচনা অনুষ্ঠানে উপস্হিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনায়, সুবর্ণা সেঁজুতি টুসির কাহিনি ও পরিচালনার স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র মীনালাপ ছবিটি মাত্র ২৮ মিনিটের।

উল্লেখ্য যে, সুবর্ণা সেঁজুতি টুসির মীনালাপের জয়জয়কার অব্যাহত থাকলেও বাংলাদেশে এই প্রথম বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে প্রদর্শনীর ও আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

সর্বশেষ কদিন আগে অর্জনের ৭ম মুকুট শোভিত হয় মিসরে । ২১তম ইসমাইলিয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সুবর্ণা সেঁজুতি টুসির ছবি মীনালাপ জিতেছে মর্যাদাপূর্ণ “জুরি অ্যাওয়ার্ড”। ছবিটি স্বপ্লদৈর্ঘ্য ফিকশন ক্যাটাগরিতে দ্বিতীয় সেরা ছবির মর্যাদা পেয়েছে।

এ আসরে গত ২১ বছরে বাংলাদেশের কোনো ছবি এবারই প্রথম পুরস্কার পেল। ১৬ এপ্রিল ছিল এই উৎসবের সমাপনী দিন। ওই দিন মিসরের সুয়েজ খালের তীরে ইসমাইলিয়ার উৎসবস্থল সাংস্কৃতিক প্রাসাদে বিজয়ীদের পুরস্কৃত করা হয়েছে।

পুরস্কারটি পেয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে টুসি বলেন, ‘মধ্যপ্রাচ্য তথা আফ্রিকা মহাদেশের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে সম্মাননা পাওয়া নিঃসন্দেহে বিরল গৌবরের।

এই পুরস্কার পেয়ে আমি বিস্মিত। আমাকে আরও অনেক দূরের পথ অতিক্রম করার প্রেরণা জোগাবে জুরি অ্যাওয়ার্ড। আমি বাবাকে তার জন্মদিনে এই ট্রফিটি উসর্গ করলাম।’ -১৭ এপ্রিল ২০১৯ ছিল টুসির পিতা বিশিষ্ট কলামিস্ট, লেখক, গবেষক, কবি ও রাজনৈতিক নেতা এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং দলীয় মুখপত্র ‘উত্তরণ’ সম্পাদক এবং প্রকাশক, সামাজিক সংগঠন অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের সভাপতি ড.নূহ-উল-আলম লেনিনের ৭২তম জন্মদিন।

২১তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে মিসরের ইসমাইলিয়ায় ১০-১৬ এপ্রিল ২০১৯। অনুষ্ঠানস্থলে মীনালাপ ১৫ এবং ১৬ এপ্রিল মোট দুবার প্রদর্শিত হয়।

 মীনালাপ ছবিটি সর্বমোট ৭টি আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছে ।

কলকাতায় দ্বিতীয় দক্ষিণ এশিয়া স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসবে মীনালাপ জিতে ঋত্বিক ঘটক স্বর্ণপদক’। নেপাল আন্তঃরাষ্ট্র চলচ্চিত্র উৎসবে মীনালাপ ‘মাউন্ট এভারেস্ট’, ইউরেশিয়া ফিল্ম ফেস্টিভালে গ্র্যান্ডপ্রিক্স, তাজিকিস্তানে ক্রিটিক অ্যাওয়ার্ড, শিলিগুড়ি ও মুম্বাই চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা ছবির মর্যাদা অর্জন করে।

মীনালাপ ২৮ মিনিটের চলচ্চিত্র। গল্প এক বাঙালি দম্পতির সংগ্রামী জীবনের বাস্তবতা এবং স্বপ্ন নিয়ে। ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার প্রযোজনায় নির্মিত।

সুবর্ণা সেঁজুতি, সাংস্কৃতিক অঙ্গনে টুসি নামেই পরিচিত। ছোটবেলা থেকে জড়িত মঞ্চ নাটকে। সাংবাদিকতা, টেলিভিশনে উপস্থাপনা আর স্ক্রিপ্ট গ্রন্থণার কাজও করেছেন। পুনে ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া থেকে ফিল্ম ডিরেকশন ও স্ক্রিপ্ট রাইটিংয়ের ওপর পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা করেছেন।

সুবর্ণা সেঁজুতি এর আগে জাদু মিয়া (২০১১), পারাপার (২০১৪) ও পুকুরপারসহ (২০১৮) কয়েকটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন।

একটি উত্তর দিন

দয়া করে আপনার কমেন্টস লিখুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন