শ্রীনগর উপজেলার শীর্ষ ২৫ কৃতী সন্তান -৩য় পর্ব

0
92
শ্রীনগর উপজেলার শীর্ষ ২৫ কৃতী সন্তান -৩য় পর্ব

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার,১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং ||২৮শে ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

বিক্রমপুর খবর:শ্রীনগর থেকে মুজিব রহমান:  

৫১। সানজিদা খানম মালা, বাড়ি কবুতরখোলা। ঢাকা-৪ আসনের সাবেক এবং সংরক্ষিত আসনের বর্তমান এমপি, আইনজীবী।
৫২। মাহী বি চৌধুরী, সংসদ সদস্য, বিকল্পধারার সাংগঠনিক সম্পাদক ও মুখপাত্র, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। জন্ম ১৩ মার্চ ১৯৭০, মজিদপুর দয়হাটা, বীরতারা, পিতা- ডা. অধ্যাপক এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী সাবেক রাষ্ট্রপতি।
৫৩। ড. এ কে এম রফিকুল্লাহ, গবেষক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালযের পদার্থবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক। জন্ম ০১.০১.১৯৩১, সমষপুর, কোলাপাড়া।
৫৪। ডা. এ কে এম আমিনুল হক, অধ্যাপক ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ। জন্ম সমষপুর, কোলাপাড়া।
৫৫। মাহতাব উদ্দিন আহম্মেদ, গ্রাম দামলা, পাকিস্তান ন্যাশনাল এসেম্লির সদস্য (এমএনএ), তিনি বাংলাদেশ সৃপ্রিম কোর্ট বার কাউন্সিল এর সভাপতি ছিলেন, শ্রীনগর কলেজের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা।
৫৬। কুমার প্রমথনাথ রায়, ভাগ্যকুলের জমিদার ও কলকাতার প্রখ্যাত শিল্পপতি-ব্যবসায়ী।
৫৭। হলধর রায়, ভাগ্যকুল জমিদার পরিবারের সন্তান ও বিখ্যাত চিত্রশিল্পী ।
৫৮। ফরিদ হোসেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও এপির সাবেক ব্যুরো চীফ, বাড়ি কুকুটিয়া।
৫৯। আকতারী মমতাজ, বাড়ি কামারগাঁও, সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয় ও পিএসসির সাবেক সচিব।
৬০। অধ্যাপক শ্রীশচন্দ্র চক্রবর্তী, বাড়ি শ্যামসিদ্ধি জন্ম ১৮৬৪, তিনি বহুগ্রন্থের রচয়িতা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি বিভাগের প্রধান ছিলেন।
৬১। আসাদুল ইসলাম, সচিব- অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংকিং বিভাগ, পৈতৃক বাড়ি বাসাইলভোগ
৬২। নূরুল মোমেন খান, চেয়ারম্যান- চালনা পোর্ট ও চট্টগ্রাম পোর্ট। জন্ম ষোলঘর।
৬৩। এ্যাডভোকেট আদিলুর রহমান খান শুভ্র, ষোলঘরের সন্তান। মানবাধিকার সংগঠন অধিকারের সম্পাদক ও সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী। তিনি ডেপুটি এটর্ণী জেনারেল ছিলেন।
৬৪। জাহাঙ্গীর হাবিবুল্লা, বাড়ি লস্করপুর, তিনি মুক্তিযোদ্ধা লেখক ও সাংবাদিক।
৬৫। ড. ইঞ্জিনিয়ার এম এ কাশেম, পানি উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন বাড়ি রাঢ়ীখাল।
৬৬। জয়নাল আবেদীন, কৃষি ব্যাংকের সাবেক ডিএমডি ও বর্তমানে ইসলামি ব্যাংকের পরিচালক, লেখক বেজগাঁও,শ্রীনগর।
৬৭। অধ্যাপক সিরাজ খান, কবি ও গীতিকার, রাঢ়ীখাল ইউনিয়নের কবুতর খোলা গ্রাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক।
৬৮। ড. জামাল খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ও আমেরিকার বারডোম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক,এছাড়া তিনি প্রবন্ধকার ও সমালোচক। বাড়ি রাঢ়ীখাল।
৬৯। আব্দুল আলীম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক, বাড়ি সমষপুর, তাঁর ২৫টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।
৭০। আলমগীর কুমকুমে, বাড়ি সমষপুর। প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা ও রাজনীতিবিদ।
৭১। এ কে এ ফিরোজ নুন, গীতিকার, লেখক, গবেষক, রাজনীতিবিদ ও সাংবাদিক। জন্ম ০৪.০১.১৯৪৬, সমষপুর কোলাপাড়া। তিনি ২৩.১২.২০০৬ তারিখে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি বিএনপির রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন এবং এর প্রশিক্ষণ সেলের দায়িত্বে ছিলেন। তার পিতার নাম মোজাম্মেল হোসেন সুবা মিয়া এবং মাতার নাম সুফুলা বেগম (চাঁপা)।
৭২। ডা. মোহাম্মদ হেদায়েত হোসেন খান, বিশিষ্ট হাড় ও জোড়া বিশেষজ্ঞ, বাড়ি ভাগ্যকুল ইউনিয়নের কামারগাঁও, জন্ম ০১.০১.১৯৫৪, পিতা- মোহাম্মদ নাবালক হোসেন খান।
৭৩। নাসিমা আক্তার, বাড়ি নাগরভাগ। প্রখ্যাত মনোচিকিৎসক।
৭৪। রফিকুল ইসলাম, বাড়ি রাঢ়ীখাল, পাকিজা গ্রুপের সত্ত্বাধিকারী।
৭৫। শওকত আলী ভূইয়া দিলন, চেয়ারম্যান ক্যাপিটাল গ্রুপ, জন্ম ১৯৫৫ মাগডাল, বাঘরা। পিতা- কেরামত আলী ভূইয়া পুলিশের এসপি ছিলেন, পিতামহ ওয়াজেদ আলী ভূইয়া (সোনা মিয়া)।

*(ধারাবাহিক-চলবে )

                                                           —- (ভালো লাগলে শেয়ার করুন)

একটি উত্তর দিন

দয়া করে আপনার কমেন্টস লিখুন
দয়া করে আপনার নাম লিখুন